161 

নাজির উদ্দিন, বিশেষ সংবাদদাতা: দেশ এগিয়ে গেছে, আমরা মধ্যম আয়ের দেশ হয়ে গেছি, বাংলাদেশ সিঙ্গাপুরকে ছাড়িয়ে গেছে, আমরা কানাডার সমান হয়ে গেছি, দশ বছরের মধ্যেই আমেরিকার উপরে চলে যাবো আমরা, ইদানীং সরকারের কর্তা ব্যক্তিদের এই কমন বক্তব্য শুনে শুনে আমরা অভ্যস্থ।কিন্তু বাস্তবতা কত কঠিন আর নির্মম একটু ঘুরে দেখে আসুন সিলেট বিভাগের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার দরগা পাশা ইউনিয়নের অন্তর্গত ৯ নং ওয়ার্ডের পাইকাপনের জামখলা। নেই কোন স্কুল, ছোট একটুজায়গায় দাঁড়িয়ে ঘরের মত মসজিদ। রাস্তা বলতে নেই কিছুই। সবার বাড়ীর উঠান দিয়েই সকলের যাতায়াত। এ যেন প্রতিবেশীর সাথে সম্প্রীতির অনুপম নিদর্শন।

যে জাতি যত বেশি শিক্ষিত সে জাতি ততো বেশি উন্নত। শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি এগিয়ে যেতে পারেনা। শহরে যেমন শিক্ষার সহজলব্যতা আছে সে পরিবেশ প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে ছড়িয়ে দিতে হবে। তবেই সমন্নিতভাবে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

এবার আসি পিছিয়ে পড়া উল্লেখিত জনপদের কথায়। ঘন বসতিপূর্ণ দরিদ্র এ গ্রামটিতে ইতিপূর্বে ছিলনা কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। হাতে গুনা কয়েকজন শিক্ষার্থী পায়ে হেঁটে বহু দূরের গ্রামের স্কুলে গিয়ে পড়ালেখা করতো। যাতায়াত ব্যবস্থা খারাপ থাকায় এরাও এক সময় ঝরে যেতো।

গ্রামের কয়েকজন ব্যক্তির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় গত মে মাস থেকে ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আবুল হাসান এর বাড়ীর একটি অতিরিক্ত ঘরে ইউনিসেফের অর্থায়নে একটি প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে। দু’টি শিফটে ভাগ করে চলছে এ পাঠদান। ত্রিশ জন করে মোট ষাটজন ছাত্র-ছাত্রী এ প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষা লাভের সুযোগ পেলেও বাকীরা থেকে যাচ্ছে অন্ধকারেই। একজন মাত্র শিক্ষিকা নাম-মাত্র বেতনে চালিয়ে যাচ্ছেন প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম।

শিক্ষিকা মিনুপমার সাথে আলাপ কালে উঠে আসে এখানকার সুবিধা বঞ্চিতদের হাহাকার। প্রচন্ড গরমের মধ্যে ফ্যান ছাড়াই নিজে দাড়িয়ে থেকে আর বাচ্চাদের ফ্লোরে বসিয়ে চলছে এ পাঠদান। ফান্ডের অভাবে ডেস্ক বেঞ্চের সংস্থান এখনো হয়ে ওঠেনি।

শিক্ষা সেক্টরে সরকারের বাজেট বিশাল। কিন্তু এ জনপদের মতো অবহেলিত এলাকা সমুহে শিক্ষা বিস্তারের চিন্তা যেনো কারোর বিবেককে নাড়া দেয়না। তাইতো উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানের একমাত্র শিক্ষিকার আকুল আবেদন, সরকারী কর্মকর্তা কিংবা এলাকার বিত্তশালী লোকজন এগিয়ে আসলে সদ্য গড়ে ওঠা এ প্রতিষ্ঠানটিকে একটি পূর্ণাঙ্গ বিদ্যালয়ে রূপদান করা সহজ হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *