162 

ডেস্ক নিউজ: আবারো দেশে করোনার অস্বাভাবিক বৃদ্ধিতে উদ্বেগ বেড়ে গেছে। সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে সরকারের মধ্যেও উদ্বেগ কাজ করছে। গত কয়েকদিন ধরেই দেশে জ্যামিতিক হারে বাড়ছে করোনা। গতকাল দেশে দৈনিক শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা এক লাফে সাড়ে তিন হাজার ছাড়িয়ে গেছে, যা গত সাড়ে ৯ মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। এর আগে সর্বশেষ গত বছরের ১৫ই জুলাই নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছিল ৩ হাজার ৫৩৩ জন।
করোনা আক্রান্তের সংখ্যা গত বছরের জুলাই মাসের পর থেকে কমে এলেও, এই বছরের মার্চ মাস থেকে আবার বাড়তে শুরু করেছে। করোনা আক্রান্তের সংখ্যা গত বছরের জুলাই মাসের পর থেকে কমে এলেও, এই বছরের মার্চ মাস থেকে আবার বাড়তে শুরু করেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। সোমবার মৃত্যু হয়েছিল ৩০ জনের। এর আগে এ বছরের জানুয়ারি মাসের ৭ তারিখে ৩১জন মারা যায়।
জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা সম্পর্কে মানুষের উদাসীনতা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলা এই ভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির একটা বড় কারণ। হঠাৎ করোনা বেড়ে যাওয়ার কারণে ঢাকার ৫টি হাসপাতালকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। ‘অতীব জরুরি’ এক চিঠিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় ‘সংক্রমন পরিস্থিতির সম্ভাব্য সঙ্কটময় অবস্থা’ সামাল দিতে ঢাকার পাঁচটি হাসপাতাল ও চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রকে সার্বিকভাবে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
হাসপাতালগুলো হচ্ছে: লালকুঠি হাসাপাতাল, মিরপুর; ঢাকা মহানগর হাসপাতাল, বাবুবাজার; শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শেরে বাংলা নগর; ডিএনসিসি কোনা আইসোলেশন সেন্টার, মহাখালী; সরকারি কর্মচারী হাসপাতাল, ফুলবাড়িয়া।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গতকাল মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৩ হাজার ৫৫৪ জনের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে; মৃত্যু হয়েছে আরও ১৮ জনের। এর আগে গতবছরের ১৬ জুলাই এর চেয়ে বেশি রোগী শনাক্তের খবর দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সেদিন মোট ৩ হাজার ৭৩৩ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছিল।
গত ২৪ ঘণ্টায় পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার বেড়ে ১৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ হয়েছে, যা ৫ ডিসেম্বরের পর সবচেয়ে বেশি। নতুন শনাক্ত ৩ হাজার ৫৫৪ জনকে নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৫ লাখ ৭৭ হাজার ২৪১ জনে। আর গত এক দিনে মারা যাওয়া ১৮ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট ৮ হাজার ৭৩৮ জনের মৃত্যু হল।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৮৩৫ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন গত এক দিনে। তাতে এ পর্যন্ত সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৫ লাখ ২৫ হাজার ৯৯৪ জন হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ২১৯টি ল্যাবে ২৫ হাজার ৯৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৪৪ লাখ ৬০ হাজার ১৮৪টি নমুনা। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১২ দশমিক ৯৪ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ১২ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫১ শতাংশ।
এদিকে বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৭ লাখ ৩৫ হাজার এবং আক্রান্ত ১২ কোটি ৪২ লাখ। ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, মঙ্গলবার পর্যন্ত বিশ্বে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১২ কোটি ৪২ লাখ ৯০ হাজার ৯০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৭ লাখ ৩৫ হাজার ২ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১০ কোটি ২ লাখ ৫৭ হাজার ২৬১ জন।
করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৫ লাখ ৭৬ হাজার ৯৬২ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৪৫ জনের। আক্রান্তে ও মৃত্যুতে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ১ কোটি ২০ লাখ ৫১ হাজার ৬১৯ জন এবং মারা গেছেন ২ লাখ ৯৫ হাজার ৬৮৫ জন।
আক্রান্তে তৃতীয় এবং মৃত্যুতে চতুর্থ অবস্থানে থাকা ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় ১ কোটি ১৬ লাখ ৮৬ হাজার ৩৩০ জন সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৬০ হাজার ২০০ জনের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *