432 

মুসলিম খান, লন্ডন: বাংলাদেশের রাজনৈতিক অধিকার চর্চা ও নাগরিক স্বাধীনতা একদমই কম বলে দাবি করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা ফ্রিডম হাউজের প্রতিবেদনে। বলা হয়েছে বিশ্বের যেসব দেশকে ‘আংশিক মুক্ত’- বলে বিবেচনা করা হয় বাংলাদেশের অবস্থান তারমধ্যে শেষের দিকে। এ বছর বাংলাদেশের স্কোর ১০০তে ৩৯।

গত বছরও একই স্কোর পেয়েছিল বাংলাদেশ। এ বছর রাজনৈতিক অধিকারে ৪০ এর মধ্যে বাংলাদেশ পেয়েছে ১৫ এবং নাগরিক স্বাধীনতায় ৬০ এর মধ্যে পেয়েছে ২৪। সব মিলিয়ে ১০০-তে হয়েছে ৩৯। এর আগে ২০১৯ সালে বাংলাদেশের স্কোর ছিল ৪১, ২০১৮ সালে ছিল ৪৫ এবং ২০১৭ সালে ছিল ৪৭। বিবিসি বাংলার খবরে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এটিকে ভিত্তিহীন বলে দাবি করা হয়েছে। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, রিপোর্টটি পুরোপুরি পক্ষপাতমূলক ও ভিত্তিহীন।

ফ্রিডম হাউজের ওয়েবসাইট অনুযায়ী, যেসব দেশ ও অঞ্চলের স্কোর ১ থেকে ৩৪ এর মধ্যে, তাদের ‘মুক্ত নয়’, ৩৫ থেকে ৭১ হলে তাদের ‘আংশিক মুক্ত’ এবং ৭২ এর বেশি হলে তাদেরকে ‘মুক্ত’ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। বিশ্বের দেশ বা অঞ্চলগুলোর মধ্যে সবথেকে ভয়াবহ অবস্থা রয়েছে তিব্বত অঞ্চল, সিরিয়া ও দক্ষিণ সুদানে। এগুলো মাত্র ১ স্কোর পেয়েছে। ইরিত্রিয়া ২ স্কোর নিয়ে, উত্তর কোরিয়া ৩ স্কোর, সোমালিয়া ও সৌদি আরব ৭ স্কোর নিয়ে ‘স্বাধীন নয়’ দেশের তালিকায় নিচের দিকে রয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ায় ২৭ স্কোর নিয়ে আফগানিস্তান, ২৭ ও ২৮ স্কোর নিয়ে যথাক্রমে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীর অঞ্চল ও পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীর অঞ্চল ‘স্বাধীন নয়’ তালিকায় রয়েছে। আর ৩৭ স্কোর নিয়ে পাকিস্তান ‘আংশিক স্বাধীন’ দেশের তালিকায় একেবারে তলানিতে স্থান পেয়েছে। পাকিস্তান থেকে অবস্থান ভালো হলেও মাত্র ৩৯ স্কোর পেয়েছে বাংলাদেশ। ভারত ৬৭ স্কোর নিয়ে ‘মুক্ত নয়’ এমন দেশের তালিকায় প্রথম দিকে রয়েছে।

‘মুক্ত’ দেশ হিসেবে তালিকায় সবার থেকে এগিয়ে আছে সুইডেন, নরওয়ে ও ফিনল্যান্ড। দেশগুলোর পয়েন্ট ১০০। এরপরে ৯৯ স্কোর নিয়ে আছে নিউজিল্যান্ড, ৯৮ স্কোর নিয়ে আছে কানাডা, উরুগুয়ে ও নেদারল্যান্ড। এছাড়া ক্ষমতাধর দেশগুলোর মধ্যে জার্মানির স্কোর ৯৪, যুক্তরাজ্যের স্কোর ৯৩, ফ্রান্সের স্কোর ৯০, যুক্তরাষ্ট্রের স্কোর ৮৩, ভারতের স্কোর ৬৭, তুরস্কের স্কোর ৩২, রাশিয়ার স্কোর ৩২, ইরানের স্কোর ১৬, এবং চীনের স্কোর ৯।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *