118 

ডেস্ক নিউজঃ গত কয়েক মাস ধরেই বিধিনিষেধ শিথিল হচ্ছিল বৃটেনে। কিন্তু দেশটিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে আবারো কড়াকড়ি জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। ফলে বৃটিশ বিমানবন্দরগুলোতে দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে যাত্রীদের। দেশটির স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোর ৪টা থেকে বৃটেনে প্রবেশ করা সকলের জন্য পিসিআর টেস্ট ও আইসোলেশন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এমনকি ভ্যাকসিন গ্রহণ করলেও একই নিয়ম জারি থাকছে। মূলত দেশের মধ্যে কোভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের সংক্রমণকে ধীর করে দিতেই নতুন এই কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। এরইমধ্যে বৃটেনসহ বিশ্বের এক ডজনেরও বেশি দেশে এই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে।

পিসিআর টেস্ট তুলনামূলক বেশি খরচের কারণ এর বিশ্লেষণ করা হয় ল্যাবে। এটি এখন আন্তর্জাতিক সফরের ক্ষেত্রে বৃটেনে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বৃটেনে প্রবেশের দ্বিতীয় দিনে একটি পিসিআর পরীক্ষা করতে হবে এবং এর ফলাফল আসার আগ পর্যন্ত সেলফ-আইসোলেশনে থাকতে হবে। দেশটির হিথ্রো বিমানবন্দরে মঙ্গলবার মানুষের দীর্ঘ সারি দেখা গেছে। তারা যখন বৃটেনের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন তারা এইসব বিধিনিষেধ সম্পর্কে জানতেন না।

নতুন বিধিনিষেধ ঘোষণা করে এর পক্ষে ব্যাখ্যা দেন বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তিনি বলেন, এই বিধিনিষেধ আমাদের নতুন ভ্যারিয়েন্টকে মোকাবেলার জন্য প্রস্তুতি নেয়ার সময় করে দেবে। এখন পর্যন্ত আমরা যতখানি জানি, ভ্যাকসিন ও এর বুস্টার ডোজই আমাদের হাতে থাকা সেরা অস্ত্র। তাই আমি সবার প্রতি ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ গ্রহণের আহ্বান জানাই। এটি শুধু নতুন ভ্যারিয়েন্টের বিস্তার থামাবে তা নয়, এটি আমাদের একে অপরকে সুরক্ষিত রাখবে এবং আমরা যতকিছু অর্জন করেছি তা ধরে রাখবে।

মেট্রোর খবরে বলা হয়েছে, এই কড়াকড়ি বৃটেনের পর্যটন শিল্পের জন্য অত্যন্ত খারাপ খবর। এই শিল্প দীর্ঘ সময় ধরে ধুঁকছে। অবস্থা যখন ইতিবাচক দিকে আগাচ্ছিল তখনই আবার নতুন করে এই কড়াকড়ি আরোপ করা হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *