126 

আনোয়ার হোসাইনঃ সিলেটের তিন উপজেলার কেন্দ্রস্থল হিসেবে পরিচিত গোয়াইনঘাটের সালুটিকর শহরে রূপ নিচ্ছে।

চেঙ্গেরখাল নদীর তীর ঘেষে সালুটিকর ব্রীজ সংলগ্ন শহর রকম ব্যবসা কেন্দ্র সালুটিকর এখন কোলাহল মূখর এক জনপদ হয়ে উঠেছে। সিলেট সদর, কোম্পানীগঞ্জ ও গোয়াইনঘাট উপজেলার মিলন স্থল সালুটিকর দ্রুত বদলে যাচ্ছে।

সালুটিকরকে বদলে দিতে স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রবাসী কল্যাণ ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান অাহমদের নানামুখী উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। সালুটিকর বাজারের সিলেট টু গোয়াইনঘাটমূখী উত্তর রোড নির্মানের কাজ সম্পন্ন হলে এবং নামজারী জঠিলতা দ্রুত নিরোসন শেষে প্রক্রিয়াধীন সালুটিকর থানা বাস্তবায়ন ও থানা ভবন নির্মান হলে পরে সালুটিকর এক নতুন রূপ পাবে। বাজারের ভেতর দিয়ে যানবাহন চলাচলে এখানের নিত্য সময়ের যানঝট অার হবে না । সালুটিকর বাজারের পরিধিও বৃদ্ধি পাবে। নতুন অনেক দোকান পাট, মার্কেট তৈরি হবে। নির্মানাধীন সালুটিকর বাজার টু কচুয়ারপার- জলুরমূখ- গোয়াইনঘাট গাংকিনারী রাস্তা চালু হলে এলাকাবাসীর জন্যে অনন্য এক সহজ যাতায়াত সৃষ্টি হবে। প্রস্তাবাধীন সালুটিকর বাজার নদীঘাট নির্মিত হলে এবং বাজারে নির্মিত শেড এর সংস্কার হলে বাজারের ব্যবসায়ীদের সুবিধা বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া নির্মানাধীন কোম্পানীগঞ্জ বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কের কাজ সম্পন্ন হলে সালুটিকরে জনসমাগম আরো জমে উঠবে বলে অনেকে মনে করছেন। পরিকল্পনাধীন সালুটিকর কলেজ রোড টু উমাইরগাও কাটাউরা রাস্তা তৈরি হলে অত্র অঞ্চলের মানুষের সহজ যাতায়াতে এক বাড়তি সুবিধা তৈরি হবে।

এদিকে, নন্দীরগাও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস কামরুল হাসান আমিরুল ইউনিয়নের উন্নয়নে তাঁর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানান। গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাবে সভাপতি এম এ মতিন বলেন, সালুটিকর খুব সম্ভাবনাময় এক এলাকা। আধুনিকমনা অত্র এলাকা বাসীর জন্যে সালুটিকর খুব দ্রুত হয়ে উঠবে এক শহর। এই প্রত্যাশা অামরা করতেই পারি।

সালুটিকর জাগ্রত জনতা’র সভাপতি মাওলানা রফীক অাহমেদ মহল্লী অবিলম্বে সালুটিকর থানা বাস্তবায়ন ও থানা ভবন নির্মানের দাবী জানান। সালুটিকর যাত্রী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আইয়ুব আলী বলেন, সিলেট শহর থেকে মাত্র ১৩ কিমি দূরে সালুটিকর। এখানে কাংখিত উন্নয়ন হয়নি। সালুটিকর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শামসুদ্দিন, এলাকার বিশিষ্ট সমাজ কর্মী মিজানুর রহমান, মুহি উদ্দিন মহি, তমিজ উদ্দিন এক্ষেত্রে উন্নয়ন কার্যক্রমে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। নন্দীরগাও ইউনিয়ন উন্নয়ন ফোরামের সেক্রেটারি ইমরান আহমেদ বলেন, আধুনিক সালুটিকর গড়তে আগামীতে আধুনিক উন্নয়ন মনা নেতৃত্ব নির্বাচিত করতে হবে।

জানা যায়, সালুটিকর এক ঐতিহ্যবাহী জনপদ। সিলেট এম এ জি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর এক সময় সালুটিকর বিমান বন্দর নামে ছিল। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসেও সালুটিকর নাম জড়িয়ে রয়েছে।

এখানে রয়েছে একাধিক ব্যাংক, বীমা অফিস, মার্কেট, সালুটিকর ভূমি অফিস, ডাকঘর, নন্দীরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স, সালুটিকর পুলিশ ফাঁড়ি, মসজিদ, সালুটিকর ডিগ্রি কলেজ সহ পর্যটক সেবায় নিয়োজিত হরেক রকম রেস্টুরেন্ট। উত্তর পাশ ঘেষে অবস্থিত সম্ভাবনাময় পর্যটন কেন্দ্র দামারী হাওর ও সালুটিকর বনবিটের ছায়া ঘেরা নয়নাভিরাম মনোমুগ্ধকর পরিবেশ। প্রাত্যহিক জীবন যাত্রায় জনবান্ধন কোলাহল মূখর এক অামেজ।

বর্ষাকালে সালুটিকর সেতু সংলগ্নে পাথরবাহী লঞ্চ স্টিমারে জমে উঠে যেন এক নদী বন্দর। এ সময় বিকাল বেলায় সালুটিকর সেতুর উপর দাঁড়িয়ে মেঘালয় পাহাড়ের হাতছানি উপভোগ করতে এখানে তখন প্রতিদিন জড়ো হয়ে থাকেন শত শত ভ্রমণ পিপাসু মানুষজন। এছাড়া প্রতি শনি ও মঙ্গলবারে জমে উঠে সাপ্তাহিক হাট। সূলভ মূল্যে দেশী বিদেশি বিভিন্ন পন্য ক্রয় করতে সিলেট শহর থেকে অনেক লোক চলে যান সালুটিকর বাজারে।…

বাস্তবানাধীন ও পরিকল্পনাধীন সব উন্নয়ন প্রকল্পের দ্বারা সালুটিকর হয়ে উঠবে আগামীর এক শহর। এমন প্রত্যাশা ও দাবী এলাকা বাসীর।…
লেখক:
আনোয়ার হোসাইন,
উন্নয়ন কর্মী ও সাংবাদিক।
সভাপতি, গোয়াইনঘাট উন্নয়ন ফোরাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *