173 

ডেস্ক নিউজঃ সিলেটে দিন দিন বাড়ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। থেমে নেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর মিছিলও। এই ভয়ঙ্কর রোগ থেকে বাঁচতে হলে প্রয়োজন সামাজিক দূরত্ব ও সরকারের স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা।

এই পরিস্থিতির মাঝেও সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাত পর্যন্ত সিলেট সদর উপজেলার বিভিন্ন জাট বাজারে চলছে ব্যবসা বাণিজ্য।

মোবাইল কোর্ট না হওয়ায় প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে উপজেলার বিভিন্ন বাজারে চলছে ব্যবসা। সরকারি নিয়ম মোতাবেক বিকাল ৪ টা পর্যন্ত শপিংমল ও ৫টা পর্যন্ত নিত্য প্রয়োজনীয় দোকানপাট খোলা থাকার কথা থাকলে রাত পর্যন্ত দোকান খোলা রেখে সদর উপজেলার অনেক বাজারে ব্যবসা করতে দেখা যাচ্ছে।

এদিকে গত কয়েকদিন থেকে সিলেট জেলায় বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। একদিকে দোকানপাট খোলা, তারমধ্যে নেই কারো মধ্যে সচেতনতা। সামাজিক দূরত্ব তো মানা দূরের কথা সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে তারা ব্যবসা করে যাচ্ছেন।

সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার সময় খাদিম নগর ইউনিয়নের সাহেবের বাজার দোকানপাট খোলা রাখেন ব্যবসায়ীরা। এ সময় পুলিশ দোকানপাট বন্ধ করার জন্য বলে। কিন্তু কিছু ব্যবসায়ীরা তা না মেনে পুলিশের সাথে কথা কাটাকাটি শুরু করে। এ সময় মোবাইল কোর্ট না থাকায় জরিমানা করা হয় নি। সচেতন মহল বলছেন, এসময় যদি মোবাইল কোর্ট দিয়ে জরিমানা করা হত তাহলে ভয়ে আর কেউ দোকান খোলা রাখত না।

সদর উপজেলার টুকেরবাজার, ধোপাগুল, বলাউরা, শিবেরবাজার, লামাকাজি, মেজরটিলা, পিঠারগঞ্জ, ইসলামগঞ্জ বাজারে দেখা যায়, জুতার দোকান, কাপড়ের দোকান, সেলুন, মাছবাজার-সবজি বাজার, নিত্য প্রয়োজনীয় দোকানপাট নির্ধারিত সময়ের পরও খোলা রয়েছে। প্রত্যেকটি দোকানের সামনে, ভিতরে ক্রেতাদের ভিড়।

সিলেট সদর উপজেলার একাধিক ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা বলেন, কেউ সিদ্ধান্ত অমান্য করে দোকান খুলে ব্যবসা করার কারণে যদি আইনিসহ অন্য কোনো সমস্যায় পড়েন তাহলে ব্যবসায়ী সমিতি তাদের পক্ষে থাকবে না। সেই কথাও সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *